‘রাস্তায় না নামলে বাড়িতে গিয়ে চুড়ি পরিয়ে দেব’

আন্দোলনে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা রাজপথে না নামলে বাড়িতে গিয়ে হাতে চুড়ি পরিয়ে দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্মমহাসচিব হাবিব-উন নবী খান সোহেল।

সোমবার নয়া পল্টনে মওলানা ভাসানী মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির এক সভায় এই হুমকি দেন সোহেল। এসময় দলীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপরসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ কেলেঙ্কারির মামলা রায় ঘোষণা করা হবে।

ওই দিন মহানগর নেতা-কর্মীদের সবাইকে রাজপথে থাকার আহ্বান জানিয়ে সোহেল বলেন, আপনারা এবার সকলে মাঠে নামার প্রস্তুতি নিন, দেখা হবে রাজপথে। কত শক্তি আছে তাদের, দেখবো আমরা।’

ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সোহেল বলেন, ‘সম্মান রেখে আমরা বলতে চাই, কেন্দ্রীয় নেতারা যারা সেই দিন রাস্তায় নামবেন না, পরের দিন তাদের বাসায় গিয়ে আমরা চুড়ি পরিয়ে দেব। আমরা এবার দলের সিনিয়র নেতাদের রাস্তায় দেখতে চাই।’

সোহেল বলেন, ৮ ফেব্রুয়ারি একটি সাজানো মামলার রায় হচ্ছে। যদি সঠিক রায় হয় তাহলে নেত্রী খালাস পাবেন। যদি ভিন্ন কিছু হয় তা এদেশের জনগণ মেনে নেবে না।

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালেচনা করে সোহেল বলেন, ‘বিএনপির যদি আন্দোলনের সক্ষমতা না থাকে তাহলে বিএনপিকে ঠেকানোর জন্য হাজার হাজার পুলিশ বাহিনী কেন নিয়োগ করা হয়? ওবায়দুল কাদের, আপনার নিজের দলকে সামলান। আওয়ামী লীগে এখন গুটিকয়েক সন্ত্রাসী ছাড়া কোনো নেতাকর্মী নেই। বিএনপির চিন্তা বিএনপি করবে, আপনার এতো মাথাব্যথা কেন?’

এই অনুষ্ঠানে বক্তব্যে সরকারের ষড়যন্ত্র রুখতে ‘জনগণের সুনামি’ সৃষ্টি করতে বিএনপি নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান ফখরুল।

তরুণদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা বুড়ো হয়ে গেছি, বয়স হয়ে গেছে। সারাটা জীবন আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্যে আছি, কখনো সরে যাইনি। আপনারা যারা তরুণ আছেন সময় আপনাদের। পরিবর্তন আপনাদেরই আনতে হবে। পরিবর্তন আনতে হলে আপনাদের শক্ত হয়ে দাঁড়াতে হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারের সঞ্চালনায় এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply